‘মা হাসিনা ভাত দে, কাপড় দে, নইলে একটু বি-ষ দে’

0

নরসিংদী প্রতিনিধি:

মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন ও বকেয়া পরিশোধসহ ১১ দফা দাবিতে ভুখা মিছিল করেছেন নরসিংদীর ইউএমসি জুট মিলের শ্রমিকরা।

সোমবার (২৫ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে ইউএমসি জুটমিলের প্রধান ফটক থেকে মিছিলটি বের করা হয়। পরে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় মিল গেটে গিয়ে মিছিলটি শেষ হয়। রাষ্ট্রায়ত্ত্ব পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ ঐক্য পরিষদের ডাকে সারাদেশে এ কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

এ সময় ‘মা হাসিনা ভাত দে, কাপড় দে, নইলে একটু বি-ষ দে’, ‘পাটমন্ত্রীকে পদ’ত্যাগ করতে হবে’ ইত্যাদি ব্যানার এবং থালা, বাটি, ও প্ল্যাকার্ড নিয়ে শতাধিক পাটকল শ্রমিক মিছিলে অংশ নেন। তারা বকেয়া মজুরি, পিএফ’র টাকা প্রদান ও বদলি শ্রমিকদের স্থায়ীকরণ, মজুরি কমিশনসহ তাদের ১১ দফা ন্যায্য দাবি না মানায় সরকারের সমালোচনা করে পাট মন্ত্রীর পদ’ত্যাগ দাবি করেন। অচিরেই দাবি না মানলে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন শ্রমিক নেতারা।

মিছিলে ইউএমসি জুট মিলের সিবিএ সভাপতি শফিকুল ইসলাম মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন, নন সিবিএ পরিষদের সাবেক সভাপতি আনিসুর রহমান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদসহ ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

১১ দাবিতে রাজশাহীতে পাটকল শ্রমিকদের বিক্ষো’ভ

১১ দফা দাবি বাস্তবায়নে বিক্ষো’ভ করেছেন রাজশাহীর পাটকল শ্রমিকরা। সোমবার (২৫ নভেম্বর) কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে পাটকলের সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদ সমাবেশের আয়োজন করে।

বেলা ১১টার দিকে নগরীর কাটাখালি এলাকায় মিলগেটে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে এ সমাবেশ করেন শ্রমিকরা। এতে সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ঘণ্টাখানেক পর শ্রমিকরা রাস্তা ছেড়ে সরে গেলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

বিক্ষো’ভে নেতৃত্ব দেন রাজশাহী পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি জিল্লুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক শামীম হোসেন। এ সময় সংগঠনটির সহ-সভাপতি আব্দুল আলীম ও কোষাধ্যক্ষ মোস্তাক হোসেনসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

শ্রমিক নেতারা বলেন, গত ১২ সপ্তাহ থেকে শ্রমিকদের বেতন বন্ধ। ২০১৩ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ৫৫০ জন অবসরে গেলেও গ্র্যাচুইটি পাননি।

জাতীয় মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন, সরকারি-বেসরকারি অংশীদারির (পিপিপি) সিদ্ধান্ত বাতিল, অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়ন চান শ্রমিকরা।

শেয়ার করুন !
  • 12
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply