ফরিদপুর মেডিকেলে পর্দাকাণ্ডে চিকিৎসকসহ ৬ জনের নামে দুদকের মামলা

0

সময় এখন ডেস্ক:

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অপ্রয়োজনীয় এবং অ’বৈধভাবে প্রাক্কলন ব্যতীত উচ্চমূল্যে হাসপাতালের যন্ত্রপাতি ক্রয়ের মাধ্যমে সরকারের ১০ কোটি টাকা লোপাট চেষ্টার অভিযোগে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বুধবার সকালে দুদকের ফরিদপুর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে মামলাটি করেন সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী।

এ মামলায় ঠিকাদার ও চিকিৎসকসহ ৬ জনকে আসামি করা হয়েছে। তারা হলেন- ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দন্ত বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক গণপতি বিশ্বাস, সাবেক প্যাথলজিস্ট এ এইচ এম নুরুল ইসলাম, গাইনি বিভাগের জুনিয়র কনসালট্যান্ট মিনাক্ষী চাকমা, আহমেদ এন্টারপ্রাইজের মালিক মুন্সী ফররুখ হোসাইন, অনিক ট্রেডার্সের মালিক আবদুল্লাহ আল মামুন ও ঢাকার জাতীয় বক্ষব্যাধি হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মুন্সী সাজ্জাদ হোসেন।

হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়ক ওমর ফারুক মারা যাওয়ায় তাকে আসামি করা হয়নি।

এই ৬ জনের নামে ১৮৬০ সালের দ’ণ্ডবিধি ৪০৯, ৫১১, ১০৯ এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্র’তিরোধ আইনের ৫(২)–এর ধারায় মামলা হয়েছে।

ফরিদপুর দুদক কার্যালয়ের উপপরিচালক আবুল কালাম আজাদ এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

দুদক সচিব মুহাম্মদ দিলোয়ার বখত বলেন, সুনির্দিষ্ট তথ্যপ্রমাণ পেয়ে ৬ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। মামলার অনুমোদন দিয়েছে কমিশন।

উল্লেখ্য, ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউ এর রোগীকে আড়াল করে রাখার এক সেট (১৬ পিস) পর্দা কেনা বাবদ খরচ দেখানো হয়েছে ৩৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এমন খবর একাধিক গণমাধ্যমে প্রকাশের পরে দুর্নীতির বিষয়টি আমলে নিয়ে অনুসন্ধানে নামে দুদক।

ফরিদপুর মেডিকেলে প্রতিটি গাছ লাগাতে খরচ সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা!

এবার অভিযোগ পাওয়া গেছে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (ফমেক) এর অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এস এম খবীরুল ইসলামের বিরু’দ্ধে। জানা যায়, বৃক্ষ রোপণ প্রকল্পে ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে কলেজ সংলগ্ন এলাকায় লাগানো হয় ২০০টি গাছ, সেই হিসেবে ১টি গাছ লাগাতে খরচ হয়েছে সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা।

তবে নিজেকে নির্দোষ দাবী করে ফমেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ এস এম খবীরুল ইসলাম বলেন, আমি কোন অ’নিয়ম ও দুর্নীতির সাথে জড়িত না, গাছ রোপণ করেছে পূর্ত ভবন ও প্রকল্প পরিচালক। তারা সব জানেন।

শেয়ার করুন !
  • 815
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!