মেয়ে হ’ত্যার মামলা না নিয়ে উল্টো বাবাকেই ডাকা’তি মামলায় ফাঁ’সালেন ওসি

0

পাবনা প্রতিনিধি:

পাবনা জেলার ফরিদপুর থানার ওসি আবুল কাশেমের বিরু’দ্ধে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নির্যা’তনে আশা খাতুন নামে এক গৃহবধূ নিহ’তের ঘটনায় মামলা নথিভুক্ত না করে উল্টো নিহ’ত গৃহবধূর বাবা জাহিদুল ইসলাম বাবুকে ডাকা’তি মামলায় ফাঁ’সানোর অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় ক্ষু’ব্ধ এলাকাবাসী আন্দোলনে নেমেছে। এর অংশ হিসেবে ওই গৃহবধূ হ’ত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার এবং ওসি আবুল কাশেমের অপ’সারণ দাবিতে গত বুধবার উপজেলার গোপালনগর গ্রামের কয়েক’শ বাসিন্দা রাস্তায় দাঁড়িয়ে মানব-বন্ধন ও বিক্ষো’ভ মিছিল করেছে।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া গৃহবধূর স্বজনদের ভাষ্য, ৪ বছর আগে পার্শ্ববর্তী গোলকাটা গ্রামের সিঙ্গাপুর প্রবাসী ছফর আলীর সঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় গোপালনগর গ্রামের আশা খাতুনের। সম্প্রতি শ্বশুরবাড়িতে থাকা অবস্থায় ননদের স্বামী সাইফুল ইসলামের সঙ্গে তার জা আঙ্গুরি ও জাহানারা খাতুনের অ-সঙ্গতিপূর্ণ সম্পর্কের বিষয়টি জেনে ফেলে সে।

এতে ক্ষি’প্ত হয়ে ২ সেপ্টেম্বর রাতে পরিকল্পিতভাবে আশাকে মা’রধর করে জোর করে মুখে বি’ষ ঢেলে দেয় তারা। খবর পেয়ে বাবার বাড়ির লোকজন ওই বাড়িতে গিয়ে সং’কটাপন্ন অবস্থায় আশাকে উদ্ধার করে প্রথমে ফরিদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মা’রা যান।

আশার বাবার বাড়ির লোকজনের অভিযোগ, আশার ৩ বছরের কন্যা আরিকা জানায়, তার মাকে বড় মা জাহানারা ও আঙ্গুরি মা’রধরের পর গ-লাটি’পে শ্বাসরো’ধ করে। এরপর তারষ মুখে বি’ষ ঢেলে দেয়।

এ ঘটনায় থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নিয়ে উৎ’কোচের বিনিময়ে উল্টো আশার বাবা জাহিদুল ইসলাম বাবুর বিরু’দ্ধে ডাকা’তিসহ ২টি মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার করে কারাগা’রে পাঠায়। পরে জামিনে বের হয়ে আশা হ’ত্যার ঘটনায় ২৮ নভেম্বর জাহিদুল ইসলাম বাবু বাদী হয়ে পাবনার আমলি আদালতে ৫ জনকে আসামি করে হ’ত্যা মামলা দায়ের করেন।

আশার বাবা জাহিদুল বলেন, আমার মেয়ে হ’ত্যার পর থানা মামলা নেয়নি। উল্টো ডাকা’তির মামলা দিয়ে আমাকে জেলে পাঠিয়েছে। কোর্টে মামলা করায় এখন নানা ভ’য়-ভীতি দেখানো হচ্ছে। মামলা তুলে নিতেও ওসি চাপ দিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ফরিদপুর থানার ওসি আবুল কাশেম বলেন, আমি কোনো ধরনের উৎ’কোচ গ্রহণ করিনি। আর আশা নামে কোনো নারী হ’ত্যার শি’কার হয়নি। আমার বিরু’দ্ধে স্থানীয়দের এই অভিযোগ পুরোপুরি ষড়-যন্ত্র।

তবে এ ব্যাপারে পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়টি খোঁজ নিয়ে গুরুত্বের সঙ্গে ঘটনা তদন্তে ওসিকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ ছাড়াও ওসির বিরু’দ্ধে অভিযোগও খতিয়ে দেখা হবে।

শেয়ার করুন !
  • 821
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!