ভারত বিশ্বে ধ-র্ষণের রাজধানী হিসেবে পরিচিত: রাহুল গান্ধী

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ভারতে নারীদের বিরু’দ্ধে সহিং’সতা বৃদ্ধি পাওয়ায় ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে তীব্র ভাষায় আক্র’মণ করেছেন বিরো’ধী দল কংগ্রেসের এমপি রাহুল গান্ধী। শনিবার কংগ্রেসের এই নেতা নরেন্দ্র মোদিকে উদ্দেশ্য করে বলেন, সহিং’সতায় বিশ্বাসী মানুষেরা এখন দেশ চালাচ্ছেন।

সভায় বক্তব্যের এক পর্যায়ে রাহুল গান্ধী বলেন, ভারত বিশ্বে এখন ধ-র্ষণের রাজধানী হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। বিদেশিরা জিজ্ঞেস করছেন, কেন ভারত তার মেয়ে এবং বোনদের সুরক্ষা দিতে অ’ক্ষম। লোকজন ভারতকে চেনে এখন ধ-র্ষণের খবর দিয়ে। তথ্য উপাত্ত দেয়া হয় এদেশে ধ-র্ষণের পরিমাণ উল্লেখ করে।

উত্তর প্রদেশের উন্নাওয়ে ধ-র্ষণের মামলার শুনানিতে যাওয়ার পথে অভিযুক্তদের মা’রপিট ও আগুনে ২৩ বছর বয়সী এক তরুণী ও তেলেঙ্গানায় ধ-র্ষণের পর এক চিকিৎসক তরুণীকে পুড়িয়ে হ’ত্যার ঘটনায় ভারতজুড়ে যখন তীব্র ক্ষো’ভ বিরাজ করছে সেই সময় এমন মন্তব্য করলেন কংগ্রেসের এই নেতা।

কেরালার ওয়াইয়নদে দলীয় এক সমাবেশে রাহুল গান্ধী বলেন, আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোগুলো ভেঙে যাওয়ার কারণ রয়েছে। এর একটি কারণ হলো, মানুষ আইন নিজেদের হাতে তুলে নিচ্ছে। আর যে মানুষটি এই দেশ পরিচালনা করছেন; তিনি নিজে সহিং’সতা এবং নি’র্বিচার ক্ষমতায় বিশ্বাস করেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পাশাপাশি কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল বিজেপিরও তীব্র সমালোচনা করেন। উন্নাওয়ে পৃথক একটি ধ-র্ষণের মামলায় বিজেপির এমএলএ কুলদ্বীপ সিং সেনগার অভিযুক্ত। রাহুল গান্ধী বলেন, উত্তর প্রদেশে বিজেপির একজন এমএলএ ধ-র্ষণের মামলায় অভিযুক্ত এবং প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে একটি কথাও বলছেন না।

তেলেঙ্গানায় গত সপ্তাহে এক পশু চিকিৎসক তরুণীকে ধ-র্ষণের পর পুড়িয়ে হ’ত্যার ঘটনায় শুক্রবার অভিযুক্তদের নিয়ে তদন্তে নামে রাজ্য পুলিশ। এ সময় ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর অভিযুক্ত ৪ ধ-র্ষক পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ গু’লি চালায়।

এতে ঘটনাস্থলেই মা’রা যায় তারা। তবে পুলিশের এই দাবির সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন দেশের অনেকেই। যদিও দেশজুড়ে বহু মানুষ সাধুবাদ জানাচ্ছে পুলিশকে।

সূত্র: এনডিটিভি।

শেয়ার করুন !
  • 130
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply