বাংলাদেশের জলসীমায় মাছ ধরার সময় ১৪ ভারতীয় জেলে আটক

0

বাগেরহাট প্রতিনিধি:

বঙ্গোপসাগরের বাংলাদেশ জলসীমায় প্রবেশ করে মাছ ধরার সময় ১টি ট্রলারসহ ১৪ ভারতীয় জেলেকে আটক করেছে কোস্টগার্ড।

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) ভোররাতে বাগেরহাটের মোংলা সমুদ্র বন্দরের অদূরে বঙ্গোপসাগরের ফেয়ারওয়ে বয়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটক জেলেদের কাছ থেকে এফবি মা আম্বিয়া-২ নামে একটি ট্রলার এবং ট্রলারে থাকা ১ হাজার ২২০ কেজি বিভিন্ন প্রজাতির মাছসহ জাল ও দড়ি জ’ব্দ করা হয়। আটক জেলেদের বাড়ি ভারতের দক্ষিণ-চব্বিশ পরগনা জেলার বিভিন্ন এলাকায় বলে জানা গেছে।

মোংলা কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের গোয়েন্দা কর্মকর্তা লে. আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জানান, এফবি মা আম্বিয়া-২ নামে একটি মাছ ধরার ট্রলার নিয়ে ভারতীয় জেলেরা বঙ্গোপসাগরে বাংলাদেশের জলসীমায় প্রবেশ করে। মাছ ধরার সময় কোস্টগার্ডের সদস্যরা তাদের আটক করেন। পরে তাদের মোংলা থানায় হস্তান্তর করা হয়।

মোংলা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, আটক জেলেদের বিরু’দ্ধে সামুদ্রিক মৎস্য অধ্যাদেশ আইনে মামলা করা হয়েছে। পরে তাদের কারাগা’রে পাঠানো হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে ক্যাম্প-পালানো ৯ রোহিঙ্গা আটক

মিয়ানমারের সামরিক জা’ন্তাদের নিপী’ড়নের শি’কার হয়ে কক্সবাজারের ক্যাম্পে আশ্রয় নিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে বাংলাদেশি জনগোষ্ঠীর সাথে মিশে যাওয়ার চেষ্টাকারী ৯ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতরা হল- সৈয়দ আলম (৩০), মো. ইউনুছ (১৮), আমেনা খাতুন (৫০), মাজেদা খাতুন (২৫), ছেনরা খাতুন (২২), ময়ূরা বেগম (৬), আয়েশা বিবি (৩), জান্নাত (৫) ও আজিজুর রহমান (১)।

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত পৌনে ৩টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনের সামনে থেকে তাদের আটক করা হয়।

আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রসুল আহমদ নিজামী এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, এক রোহিঙ্গা নাগরিকের মাধ্যমে কক্সবাজারের কুতুপালং রেহিঙ্গা ক্যাম্প ও চট্টগ্রাম থেকে আসা ৯ জন রোহিঙ্গা পুরুষ, নারী ও শিশু মঙ্গলবার রাতে অ’বৈধভাবে আখাউড়া সীমান্ত দিয়ে ভারতে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু সীমান্ত এলাকায় গিয়ে সুবিধা করতে না পেরে তারা ফের আখাউড়া রেলওয়ে স্টেশনের দিকে যাচ্ছিল।

তিনি আরও জানান, তখন স্টেশন এলাকায় চেকপোস্টে থাকা পুলিশ সদস্যরা তাদের জিজ্ঞাসা’বাদ করে নিশ্চিত হয় সবাই রোহিঙ্গা। এরপর তাদেরকে থানায় নিয়ে আসা হয়। এ ঘটনায় থানায় কোনো মামলা হয়নি। তাদেরকে আবারও রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ফেরত পাঠানো হবে।

শেয়ার করুন !
  • 267
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!