স্বাস্থ্য পরামর্শ: কিডনিতে পাথর জমছে কি না কীভাবে বুঝবেন?

0

স্বাস্থ্য বার্তা ডেস্ক:

খাদ্যভ্যাাস ও অ’নিয়ন্ত্রিত জীবন যাপন পদ্ধতির কারনে আমাদের অনেকেরই কিডনির রোগ হয়। কিডনির নানা রকম রোগের মধ্যে পাথর হওয়াটা খুবই কমন। এটি ইউরিলিথিয়াসিস নামেও পরিচিত। কম পানি পানের প্রবণতা এই রোগের প্রধান কারণ।

শরীরের চাহিদা অনুযায়ী পানি খাওয়ার পরিমাণ ঠিক আছে কি না বা প্রস্রাব ঠিক মত হচ্ছে কি না, তলপেটে ব্যথা বা চাপ হচ্ছে কি না এসব লক্ষণে বোঝা যায় কিডনি কতটা ভাল রয়েছে। তবে এসবের আড়ালেও কিন্তু কিডনিতে অজান্তেই পাথর জমতে পারে অনেকের!

কিডনি রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. হুমায়রা তানজীন অবশ্য মনে করেন, কিডনিতে পাথর কোথায় রয়েছে, কতগুলো রয়েছে এ সবের উপরেও এই অসুখের লক্ষণ নির্ভর করে। তার মতে, যদি খুব ছোট আকারের অল্প কয়েকটা পাথর থাকে, তা হলে কোনো লক্ষণ নাও প্রকাশ পেতে পারে। তবে সংখ্যায় বেশি হলে বা আকারে বড় হল অবশ্যই স্পষ্ট কিছু উপসর্গ থাকে। কেবলমাত্র সাধারণ কয়েকটা লক্ষণের বাইরে আরও কিছু উপসর্গ থাকে।

লক্ষণ জানা থাকলে এই অসুখ নিয়ে আগাম সচেতন হওয়া যায়, এতে শারীরিক ক’ষ্টও কিছুটা দূর করা সম্ভব হয়। আবার দ্রুত চিকিৎসা শুরু হওয়ায় সার্জারিও এড়ানো যায় অনেক সময়।

কিডনিতে পাথর জমছে কি না কীভাবে বুঝবেন?

১. কিডনির সমস্যায় ভুগলে তার ছাপ পড়বে আপনার প্রস্রাবে। রঙ বদল হচ্ছে কি না খেয়াল রাখুন। লালচে বা বাদামি প্রস্রাব পাথর জমলেও হয়। তাই চিকিৎসকের দ্বারস্থ হন।

২. কোমরের ব্যথা দিয়েও এর লক্ষণ প্রকাশ পায়। সঙ্গে মূত্রে জ্বালা, রঙের বদল এ সবের সঙ্গে কোমর ও তলপেটে ব্যথা থাকলে সচেতন হোন।

৩. জ্বর ও বমির প্রবণতাও যুক্ত হয়।

এসব লক্ষণ দেখা দেয়ার আগেই কিডনির যত্ন নিন। প্রতি ৩ মাস অন্তর সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। সঙ্গে শরীরের প্রয়োজন ও চাহিদা অনুযায়ী নিয়মিত পানি পান করুন।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!