তারেকের নির্দেশে ইতালিয় গণমাধ্যমে বিএনপি নেতার বক্তব্য, বিপাকে বাংলাদেশিরা (ভিডিও)

0

প্রবাস ডেস্ক:

ইতালিতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রবেশে নিষে’ধাজ্ঞা আরোপের জন্য ইতালি প্রবাসী বিএনপিপন্থী নেতা শাহ তাইফুর রহমান ছোটনকে দায়ি করছেন প্রবাসীরা।

প্রবাসী বাংলাদেশিরা বলছেন, ইতালিতে বাংলাদেশিদের সাময়িক সময়ের জন্য প্রবেশ নিষি’দ্ধ হওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে শাহ তাইফুর রহমান ছোটন। যিনি বিএনপির ইতালি শাখার সাবেক সভাপতি। বাংলাদেশ সরকারকে দুর্নীতিবাজ প্রমাণ করার জন্য ইতালির সংবাদ মাধ্যমকে একটি সাক্ষাৎকারও দিয়েছেন।

সাক্ষাৎকারে বিএনপির এই নেতা বলেছেন, ‘যেসব বাংলাদেশি ইতালি আসছে- তাদের সবার কাছে ভুয়া করোনা রিপোর্ট এবং এরকম প্রায় ১০ হাজার লোক ইতালি আসার পথে আছে।’

তার এই সাক্ষাৎকারের পর থেকেই নড়েচড়ে বসে ইতালি সরকার। মূলত এই বিএনপি নেতার গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারের পর থেকেই ইতালি সরকার প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেশটিতে প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ করে।

প্রবাসীরা মনে করছেন, বিএনপির পলাতক নেতা তারেক জিয়ার নির্দেশে ইতালি বিএনপির এই নেতা বাংলাদেশ সরকারকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বিত’র্কিত করার জন্য এ ধরনের মিথ্যা প্রপাগাণ্ডা ছড়াচ্ছে। অথচ তার সাক্ষাৎকার দেয়ার আগ পর্যন্ত ইতালি সরকার বাংলাদেশিদের কাছে কোন প্রকার করোনা সনদই চায়নি।

ইতালি প্রবাসী বিএনপির এই নেতা ইতালি গণমাধ্যমে যা বলেছিলেন, তার অনুবাদ করে তুলে ধরা হলো:

শাহ তাইফুর রহমান বলেন, ‘বাংলাদেশে প্রায় ১০ হাজার প্রবাসী রয়েছে যারা ইতালি আসতে চায়। কারণ, আমরা ধারণা করি ১০ লাখের বেশি বাংলাদেশি করোনা ভাইরাসে আক্রা’ন্ত এবং সেখানে কোন প্রকার চিকিৎসা ব্যবস্থা নেই। বাংলাদেশ একটা দোজখে পরিণত হয়েছে। সেই দোজখ থেকে ১০ হাজার প্রবাসী পালিয়ে ইতালি এসে বাঁচতে চায়। তাই ইতালির উচিত তাদের গ্রহণ করা। তা না করা হলে তারা দোজখে ছটফট করে মা’রা যাবে। এটা ঠিক হবে না। ইতালির উচিত এদের আসতে দেয়া যেভাবে ২৮০ জনকে হিলটন হোটেলে রেখেছে সেভাবে রাখা।

দেড় দুই লাখ টাকা খরচ করে যারা আসছে, তারা ১৪ দিন কোয়ারান্টাইনে থাকার টাকা হোটেল বুকিং দিয়েও আসতে পারবে। তাছাড়া যেহেতু সরকার টাকা দিচ্ছে কোভিডের সেই টাকা দিয়েও কোয়রান্টাইনে রাখা যায়। কিন্তু তাদের আসতে দিতে হবে দোজখ থেকে এটা সরকারের কাছে বাংলাদেশিদের আপিল।’

এদিকে প্রবাসীরা অভিযোগ করেছেন, বিএনপির এই নেতা বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ সরকারকে ব্যর্থ প্রমাণ করতে গিয়ে ইতালিতে বসবাসকারী প্রায় ২ লাখ বাংলাদেশির ভবিষ্যৎ অ’নিশ্চয়তার মুখে ফেলেছেন। ইতালিতে বাংলাদেশিদের সাময়িক সময়ের জন্য প্রবেশ নিষি’দ্ধ হওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে ইতালি প্রবাসী বিএনপিপন্থী নেতা শাহ তাইফুর রহমান ছোটন, যিনি বিএনপির ইতালি শাখার সাবেক সভাপতি।

এদিকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত বাংলাদেশিদের ইতালিতে প্রবেশের নিষে’ধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

ইতালির লেগা নর্দ দলের নেতা মাতেও সালভিনি তার ফেসবুকে ভিডিওটি শেয়ার করে লেখেন, পা’গল করা জিনিস।

ইতালি আওয়ামী লীগের সভাপতি ইদ্রিস ফরাজী ও সাধারণ সম্পাদক হাসান ইকবাল বলেন, ইতালি বিএনপির সভাপতি শাহ তাইফুর রহমান ছোটনের স্থানীয় পত্রিকায় দেয়া সাক্ষাৎকার সম্পূর্ণ দেশবিরো’ধী। তার এ বক্তব্যের কারণেই ইতালিতে দীর্ঘদিন ধরে সুনামের সাথে বসবাস করা বাংলাদেশিদের আজ অন্য নজরে দেখা হচ্ছে। তারা বিএনপি নেতার এ ধরনের বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানান।

এ বিষয়ে জানতে ইতালি বিএনপির সাবেক সভাপতি শাহ তাইফুর রহমান ছোটনকে কয়েকবার ফোন দিলে তিনি কেটে দেন।

এদিকে শাহ তাইফুরের বক্তব্য ইতালির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে সমালোচনার ঝড়। ইতালি প্রবাসী বাংলাদেশিরা এর প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। ইতালি বিএনপির সাবেক সভাপতি শাহ তাইফুর রহমান ছোটনের এ ধরনের বক্তব্যের প্রতিবাদ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র ক্ষো’ভ প্রকাশ করছেন ইতালি প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন: [লিংক-১]

L’inferno Covid in Bangladesh: “In 10mila pronti a fuggire in Italia”

Il presidente dell’associazione Italbangla, Mohamed Taifur Rahman Shah, chiede al governo italiano di revocare lo stop ai voli dal Bangladesh e di aprire le porte a chi fugge dall’epidemia: “Nel nostro Paese c’è l’inferno, almeno 10mila persone vogliono partire per rientrare in Italia”.

[লিংক-২-তে ক্লিক করুন]

শেয়ার করুন !
  • 1.7K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply